মেয়েরা পারে, ছেলেরা পারে না

লাইফ

ব্রেক আপ! বেশিরভাগ সময়ই ছেলেটির মুখ থেকে শোনা যায়, ”পারবো না, ওকে ছাড়তে আমি।”

অথবা, ”কিভাবে ভুলব, আমি!”, ”ইস আমি তো ভুলতে পারিনি ওকে। তাহলে ও কিভাবে সব ভুলে ধরে ফেলল, অন্যজনের হাত”!

হ্যাঁ, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই আর্তিগুলো শোনা যায় ছেলেদের পক্ষ থেকেই। কেন এমন? করা হয়েছে সমীক্ষা। ৫৭০৭ জনের উপর। তাঁদের সমীক্ষার জন্য বাঁছা হয়েছে ৯৬টি আলাদা আলাদা দেশ থেকে। আর সবারই বয়স ২৭ বছরের নিচে।

কী এল সমীক্ষার ফল? হ্যাঁ, সত্যি এটাই। মেয়েরা ব্রেক আপের পর তার পুরনো সঙ্গীকে ভুলতে পারে অনেক তাড়াতাড়ি। কিন্তু ছেলেটির রাতের ঘুম কিছুতেই আসে না। ছেলেটির যৌনজীবন হয়ে ওঠে দুর্বিষহ। সব পেলেও, অবচেতন মনে পেতে চায় ওই আগের পাওয়া শরীরটাকেই। উল্টোদিকের মেয়েটির সে ভাবনার অবকাশ নেই। দিব্যি সে মিশে গিয়েছে অন্য আর একটি শরীরে। ভুলে গেছে, এতদিনের চেনা শরীরটা।

কেন এমন? ব্যাখ্যা দিয়েছেন ডাক্তাররা, গবেষকরা। আসলে শারীরিক সম্পর্কের পর মেয়েটির মাথায় রাখতে হয়, তাকে অন্তত ৯ মাস গর্ভে ধারণ করতে হবে তাঁর সঙ্গীর সন্তান। তাই তার সিদ্ধান্ত হয় অনেক পোক্ত। কিন্তু ছেলেটির যে, সে বালাই নেই। সে তো শুধু চেয়েছে ওই শরীরটাই। তার যে ওটাতেই সুখ, ওটাতেই অভ্যাস।

উপায়?
আছে। ভাবনা বদলাতে হবে। মেয়েটি ব্রক আপের পর ছেলেটিকে পুরো ভুলতে চেষ্টা করে। কিছুতেই মনে আসতে দেয় না। আর ছেলেরা চায় বিচার। তাই আরও বেশি স্মৃতি। আরও কষ্ট। আরও জড়িয়ে পড়া। সব তো জেনেই নিলেন। এবার ভাবনা বদলান। আর ব্রেক আপের পরও বাঁচুন নতুন করে। এমনটাই পরামর্শ বিংহ্যামটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক, কার্লা ইভাঙ্কোভিচের।

মন্তব্য

মন্তব্য