মেয়েদের কোন হাতে ভাগ্য লেখা থাকে?

লাইফ

তরুণ বয়সে কম বেশি সব ছেলে-মেয়েরাই হাত দেখিয়ে ভাগ্য সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে থাকে। অনেকেই আবার এসবে একদমই বিশ্বাসী নন। কিন্তু তারপরো তাদের মনে এ নিয়ে কৌতুহল কাজ করে। তবে যারা বিশ্বাস করেন তারা কি জানেন, মেয়েদের কোন হাতে ভাগ্য লেখা থাকে, অর্থাৎ কোন হাত দেখতে হয়?

বিষয়টি নিয়ে ভিন্ন মত প্রচলিত আছে। কেউ বলেন মেয়েদের বাম হাত দেখতে হবে আবার কেউ বলেন মেয়েদের ডান হাত দেখতে হবে।

গবেষণায় জানা গেছে, নারী বা পুরুষের যার যে হাত বেশি সক্রিয় তার সে হাতই নাকি বেশি নির্ভুল তথ্য দেয়। যেমন যাদের বাম হাত বেশি সক্রিয় তাদের বাম হাতের ওপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। যাদের ডান হাত বেশি সক্রিয় তাদের ডান হাতের রেখার দিকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। যদিও হাত দেখার সময় দুই হাতই দেখতে হয়। যখন দুই হাতেই একই রেখা একই রকম ও স্পষ্টভাবে দেখা যায় তখন তা থেকে নির্ভুল পূর্বাভাস পাওয়া যায়।

ডান হাত হচ্ছে কর্মের হাত। এ হাতের রেখা খুব দ্রুত পরিবর্তন হয়। বাম হাতের রেখা মোটামুটি স্থায়ী থাকে। সহজে পরিবর্তন হয় না। যাদের বাম হাত বেশি সক্রিয় বা বাঁহাতি তাদের ক্ষেত্রে বাম হাতের ওপর বেশি গুরুত্ব দিতে হয়। এদের বাম হাতের রেখা দ্রুত পরিবর্তন হতে থাকে। নারী পুরুষ সবার ক্ষেত্রেই একই নিয়ম প্রযোজ্য।

হাতে বিভিন্ন ধরনের চিহ্ন থাকে। কিছু চিহ্ন থাকে এক হাতে। আবার কিছু চিহ্ন থাকে উভয় হাতে। শুভাশুভ বিচারে উভয় হাতের চিহ্নগুলো দেখতে হয়।

আগে একটা ধারণা ছিল পুরুষদের দেখতে হবে ডান হাত আর নারীর বাম হাত। এর একটা কারণ ছিল পুরুষরা ভাগ্যোন্নয়নের জন্য বাইরে কাজ করতো। আর নারীরা সন্তান লালন পালন আর গৃহস্থালীর কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকতো। কিন্তু এখন নারীরা পিছিয়ে নেই।

পুরুষদের সঙ্গে সমান তালে অবদান রাখছে পরিবার, সমাজ, দেশ ও বৈশ্বিক কল্যানে। কর্ম ও ভাগ্য বিচারে নারী ও পুরুষ উভয়েরই দুই হাত দেখা উচিত। তবে ডান হাতের রেখার গতিপথ বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হয়।

মন্তব্য

মন্তব্য